April 20, 2015

(কু)সংস্কার

ফোনে ডেটখানা চেক করতেই ভোড় ৪টের মিঠে ঘুমটা চটকে গেল। এটাও কী আজই হওয়ার ছিল...
                  
মনে মনে প্রমাদ গুনছে টিপু। কী যে হবে আজ দিনটাই এমন, Friday the 13th...

“মা...”

মা ঘুরে তাকাতেই ঢিপ করে চটপট প্রণামটা সেরে নিল টিপু। আশীর্বাদ দেবে কি, টিপুর মায়ের চক্ষু তখন ছানাবড়া। যে ছেলে কোনদিন বাড়িতে কাউকে কিছু বলেও বেড়োয়না সে কি না আজ বেরোবার আগে মাকে প্রণাম করছে। হাইলি সাসপিসিয়াস!

যাই হোক... টিপু এবার গুটিগুটি হাঁটা লাগিয়েছে কলেজের পথে। চশমার ফাঁক দিয়ে চারিদিকে তীক্ষ দৃষ্টি বোলাচ্ছে। এই বুঝি কোন কেলো হল! বিড়ালে যদি রাস্তা কাটে??? কালো বিড়াল...
            
নাহ্ বিড়ালে রাস্তা কাটেনি। মেট্রোর লাইনেও কেউ ঝাঁপ দেয়নি। অটোওয়ালা ১০ টাকার নোট নিয়ে ৪ টাকা খুচরো ও ফেরত দিল। সবই ভাল যাচ্ছে। কিন্ত‍ু না, শুধুমাত্র ব্রাহ্মমুহুর্তেই বোঝা যাবে সব ভাল হবে কিনা। আজ যে সেকেন্ড ইয়ারের রেজাল্ট।

কলেজে এমন ভীড় ফেস্ট, পরীক্ষা আর রেজাল্টের দিন ছাড়া দেখা যায় না। এই ভীড় ঠেলে ভিতরে যেতে হবে? তাও যেচে বিপদ ঘাড়ে নিতে! শুধু এই ভাবনাতেই টিপুর গায়ে জ্বর এসে গেল।

যেতে তো হবেই, তা সে যতই বিপত্তি আসুক। কিন্ত‍ু আজ তো ১৩ তারিখ, শুক্রবার, যাকে বলে কিনা Friday the 13th ! “যদি ফেল করি...” টিপুর ভাবনা ক্রমশ বাড়ছে।

ঔতো সেই বোর্ড যাতে টিপুর ভাগ্য লেখা...

“ডান চোখটা কাঁপছে কেন? এটা ভাল লক্ষণ না খারাপ? উফ্ নির্ঘাত এবার ফেল করেছি। কী হবে?”

ভীড় ঠেলে অতিকষ্টে বোর্ডের কাছে তাহলে পৌছান গেল। কিন্ত‍ু রোল নাম্বারটা...

ব্যাগ খুলে অ্যডমিটটা বাড় করতেই ভীড়ের মধ্যে থেকে কার যেন একটা হাঁচি ভেঁসে এল।

আর কোনদিকে তাকানো নয়! ব্যাগপত্র গুছিয়ে টিপু উল্টো দৌড় লাগালো। আজ আর কিছুতেই রেজাল্ট দেখা যাবে না। বাড়িতে না হয় একটা গুলই দেবে, কিন্ত‍ু রেজাল্ট দেখতে পারবে না। এত বাধা পরার পরও কেউ রিস্ক নেয়!

কিন্ত‌ু হঠাৎই টিপুর পলায়ন-প্ল্যানে ছেদ পড়ল। “কিরে পালাচ্ছিস কোথায়?”

“না মানে... ইয়ে... রোল নাম্বারটা ভুলে গেছি। অ্যাডমিটটা নিয়ে আসি বাড়ি থেকে।” টুবাইকে কোনরকমে উত্তর দিয়েই আবার পলায়নের চেষ্টা। কিন্ত‍ু পালাবে কোথায়?

“যাবি যাবি... আগে ট্রীট দিয়ে যা।”

“ট্রীট কেন?”

“ফার্স্ট ক্লাস পেলি আর ট্রীট দিবি না? তোর পরেই যে আমার রোল নাম্বার, ভুলে গেলি? আমি দেখে নিয়েছি।”

পরীক্ষায় পাশ! টিপুর পরাণটা জুড়ালো। কিন্ত‍ু দুঃখ একটাই, অঘটন আটকাল গেল না। এই মাগ্গি-গন্ডার বাজারে আবার ট্রীটের খরচা ঘাড়ে পড়ল! সব Friday the 13th-এর দোষ!
ব্যাট ক্যাট সৌজন্য : গুগল বাবাজি

No comments:

Post a Comment