April 17, 2015

মন-সুন

ছবি সৌজন্য : গুগল
“ওটা পটা না?

হ্যাঁ ঠিক ঠিক।

পাশে কে ওটা? বউ মনে হচ্ছে...”

বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে, এক হাতে ব্যাগ আর এক হাতে ছাতা ব্যালান্স করতে করতে যা চোখে পড়ল তাতে ঝিমলি শেষমেষ এই কনক্লুশানে এলো যে সামনেই তার অতীত। মানে তার প্রাক্তন ছেলেবন্ধু, সঙ্গে তাঁর বর্তমান বউ। হ্যাঁ “ছেলেবন্ধ‌ু”, কারন প্রেমিক সে কোনদিনই হতে পারেনি।

“আবার হাতও ধরেছে! বউ বলে কথা। আরেক হাতে ওটা কী? ছেলের হাতে লেডিস পার্স?”

উফ্ এ এক ঝামেলা বটে! ঝিমলির দুহাতে জিনিস, আর তাই মুখে চাপা দিয়ে যে একটু হাসবে সে উপায়ও নাই! খারাপ লাগা, ভাল লাগা গুলোকে তাহলে ফাইনালি মেয়েটা ছাতা আর ব্যাগের মত ব্যালেন্স করতে শিখেছে।

পাস কাটিয়ে বেড়িয়ে যাচ্ছে অতীত... নিজের বর্তমানের হাত ধরে। ঝিমলি দেখলো, বৃষ্টিতে ভিজলো, আর ভাবলো... ভাগ্যিস রিলেশনের সিপ-টা মাঝপথে ডুবেছিল। ঝিমলি তো এমন কাউকে চায়নি যে শুধুই তার পার্স বহন করবে। তবে যে একজন মেয়ের আত্মসম্মানের ভার নিতে পারেনা তার জন্য লেডিস পার্স-ই ঠিক আছে। অজান্তেই ঠোটের কোনে একটা হাসি ফুটে উঠল ঝিমলির।

আরে, পিছনে ফিরে তাকাবার কোন ইচ্ছে জাগলো না যে ঝিমলির মনে! অবাক কান্ড! বছর কয়েক আগেও তো মনে হত একবার ঘুরে দেখি। তাহলে ঘোর কেটেছে। কিন্ত‍ু মেঘ আর কাটছে না। ওফ্ এই জুলাই-এর বর্ষা!

৪৫ সেকেন্ড হয়ে গেল... একবার ফিরে তাকাতে দোষ নাই। যেমন ভাবা তেমনি কাজ। অদ্ভুত ব্যাপার, ফিরে তাকিয়েও পিটুইটারি গ্ল্যান্ডে খুব একটা চাপ পড়ল না। ধুস্! পিছনে তাকাতে গিয়ে বরং জিন্সে আরও কাদা লেগে গেল! এই জন্যই হয়ত বলে অতীত নিয়ে ভেবে লাভ নেই, শুধুই ক্ষতি।

ঐ অতীত যাচ্ছে দুরে,

সে যাক গে... How does it matter?
ঝিমলি এখনো কাঁদে... তবে ইমোসনাল মুভী দেখে।
ঝিমলি এখনো হাসে... শুধুই মনের আনন্দে।
ঝিমলি এখনো ভাবে... তবে ব্যার্থ প্রেম নিয়ে নয়।
ঝিমলি এখনো বাঁচে... তবে মরে থেকে নয়।

তাই আর বেশী না ভেবে ঝিমলি এবার জোরে পা চালালো। তাড়াতাড়ি বাড়ি ফিরে গরম গরম চা আর পেয়াঁজি দিয়ে মনসুন ম্যাজিক উপভোগ করতে হবে তো...

No comments:

Post a Comment