April 24, 2015

ভুতের রাজা দিল বর

নিজের চোখকে বিশ্বাস হচ্ছেনা মোটে! এটা কি সত্যি?

***

ভয় যে একটু করছে না তা নয়। অমন ভুষভুষে কালো চেহারা, মুলোর মত দাঁত, অদ্ভুত মিহি গলা আর গোল গোল চোখ। এবার তো মনে হয় মুচ্ছো যাব...
              
***

নাহ্ মুচ্ছো গেলাম না। কিন্ত‍ু এই দৃশ্য যে আর নিতে পারছি না। একি সত্যিই ভুতের রাজা?

***
ছবি সৌজন্য : গুগল বাবাজি

“কি চাই কি চাই
কত চাই কটা চাআআ.....ই।”
সেই বহুদিনের চেনা গানটা নাঁকি সুরে আবার শুনতে পেলাম। হাত পা কেমন ঠান্ডা হয়ে আসছে...
ঠিক বুঝতে পারছিনা। স্বপ্ন-টপ্ন দেখছি না তো।
একপ্রস্থ চোখ ডলার পরও সেই মূর্তি আবার দেখতে পেলাম। চারিপাশে টিমটিম করে জ্বলছে আলো আর তার মাঝে ভুতের রাজা। কেমন জুলজুল করে তাকিয়ে আছে।


***

তাহলে এটা স্বপ্ন নয় সত্যি? ভুতের রাজা বর দেবে? আমাকে?

***

একটা অদ্ভুত নিঃস্তব্ধতা। শুধু ঝিঁ ঝিঁ পোকার ডাক, আমি আর ভুতের রাজা।
চাইবো? একটা বর চেয়েই দেখি। সামনে থেকে অফার আসছেই যখন।
                
কিন্ত‍ু কী চাইবো? সামনেই পরীক্ষা, পাস করার বর? উফ্ তাহলে আর পড়তে হবে না। বা সোজা সরকারী চাকরি?
নাহ্ টাকা চাই বরং। তাহলে পড়াশুনা চাকরি কিচ্ছু নিয়ে ভাবতে হবে না।
উহু... এত টাকা একসাথে পেলে উটকো চাপ হয়ে যেতে পারে...
তার চেয়ে বরং গুপি বাঘা কে ফলো করাটাই সেফ। যেখানে খুশী সেখানে যেতে চাইলে যাতায়াত খরচা বাঁচবে। উফ্... অটোওয়ালা আর বাসভাড়া তো আর সামলাতে হবে না। যা খুশী তাই খেতে পেলে রোজ পিৎজা উইথআউট এনি খরচা। আর গান বাজনা জানলে বয়ফ্রেন্ড পটানোও জলবৎ তরলং হয়ে উঠবে। বরং ঢাকের বদলে গিটার বাজানোর বরটা চাইবো। লাইফ সেট!

***

“তাই হবে তাই হবে তাই হবে...”
আবার সেই নাঁকি গলায় মিহি সুর আর শেষে ভুতের রাজার মিলিয়ে যাওয়া, এতদুর মনে আছে।
বাকীটা শুধুই নিরাশা...
ঘুম থেকে উঠে যখন হাততালি দিয়ে গরম এক কাপ আদা দেওয়া চা পাওয়ার চেষ্টা করলাম তখন বুঝলাম... স্বপ্নই দেখছিলাম।
এমনকি সোফা থেকে উঠে পাশের ঘরে যাওয়ার জন্যও আমাকে নিজের পদযুগলকেই কষ্ট দিতে হল। গান গাওয়ার চেষ্টার ফল আরো বেদনাদায়ক হল। মা এসে কানটা মুলে দিয়ে গেল।

ভুতের রাজা এ তোমার কী বর-বর ছলনা? আহা সত্যিই যদি তুমি এসে একটি বার আশ্বাসটি দিতে...

রাজামশাই শুনছেন কী?

No comments:

Post a Comment